স্বামী–স্ত্রীর মারাত্মক যে ৮ টি ভূলের কারনে সন্তান প্রতিবন্দী হতে পারে!

মহান আল্লাহতায়ালা প্রত্যেক পুরুষের জন্য স্ত্রী হিসেবে একজন নারীকে মনোনিত করে রেখেছেন। এই স্ত্রীর সাথে আল্লাহর দেওয়া বিধান অনুযাই সহবাস করলে আমরা সহজেই তৃপ্তি লাভ করতে পারি। বেঁচে যেতে পারি এইডস এর মত নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে।

মহান আল্লাহতায়ালা বলেন, হে পুরুষ সম্প্রদায় আমি তোমাদের জন্য তোমাদের স্ত্রীকে হালাল করে দিয়েছি। যাতে করে তোমরা শয়তানের ধোঁকায় পরে বিপথগামী না হও।

ধর্ম ও জীবনের আলোচনায় আজ আমরা জেনে নিব স্বামী স্ত্রী সহবাসের দোয়া, কখন সহবাস নিষিদ্ধ ও সহবাসের কিছু নিয়ম।

সহবাসের দোয়া :
‘বিসমিল্লাহি জান্নিবিনা শাইত্বানা ওয়া জান্নিবিশ শাইত্বানা মা রাযাকতানা’ অর্থাৎ হে আল্লাহ আমাকে শয়তান হতে বাঁচার এবং আমার জন্য যা হালাল করেছ তাহা হইতে শয়তানকে বিতারিত করো।

সহবাস নিষিদ্ধ :

(১) রোগী ব্যক্তি সহবাস করিলে তার রোগ আরো বেড়ে যায় এবং শরীরের ক্ষতি হবে

(২) শরীরে জ্বর ও বেশি গরমে স্ত্রী সহবাস পাগল হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে

(৩) বৃদ্ধা ও বারবনিতার সঙ্গে সহবাস করলে আয়ু কমে যায়

(৪) হায়েজের অবস্থায় স্ত্রী সহবাস করলে স্বামী স্ত্রী দুই জনেই রোগ হতে পারে

(৫) নিকৃষ্ট স্ত্রী সাথে করলে নিকৃষ্ট সন্তান জম্ম লাভ করে

(৬) ভরা পেটে স্ত্রী সহবাস করলে কঠিন রোগ হবে

(৭) অন্ধকার ঘরে ক্ষুদ্র বা নোংড়া জায়গায় স্ত্রী সহবাস করলে চিরতরে স্বাস্থ্য নষ্ট হয়ে যায় (৮) ভীষণ ক্ষুধার সময় স্ত্রী সহবাস করিলে লিঙ্গ শিথিল হয়ে যায়।