ঘুম

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবে এই সাধারণ ৩ অভ্যাস

বছর দেড়েক ধরে যে শব্দ কিংবা বাক্যগুলো আমরা সবচেয়ে বেশিবার শুনেছি তার মধ্যে একটি হলো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। কারণ আমাদের সুস্থ ও স্বাস্থ্যকর রাখার ক্ষেত্রে এর ভূমিকা সবচেয়ে বেশি। আমরা রোগে আক্রান্ত হবো কি না, হলে কতদিনে সেরে উঠবো তা অনেকটাই নির্ভর করে আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কেমন তার ওপরে।

করোনা মহামারির এই দুঃসময়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর বিকল্প নেই। তবে এটি যতটা সহজ মনে হয়, ততটাও সহজ নয়। বিশেষজ্ঞরা অনেক সময় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য নানা পরামর্শ দিয়েছেন। সেগুলোর কোনো একটি মেনে না চললে ভেঙে পড়তে পারে এটি। আমাদের প্রতিদিনের কিছু পরিচিত কাজই নিয়ম মেনে করলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো আর কঠিন থাকে না। জেনে নিন সেজন্য কী প্রয়োজন-

সঠিক খাবার খান, সঠিক উপায়ে খান: খাবার খাওয়ার সময় মুখে কোনটি স্বাদ লাগছে তা চিন্তা করে খেলে হবে না। বরং কোন খাবারটি স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী তা চিন্তা করতে হবে। সেকথা মাথায় রেখেই খাবার খাবেন। কারণ খাবার কোনো কারণে অস্বাস্থ্যকর কিংবা শরীরের জন্য উপযোগী না হলে তা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। তাই খেতে হবে ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার। খাবারে যেন যথেষ্ট ফাইবার থাকে সেদিকে খেয়াল রাখবেন। ব্রকোলি, কপি জাতীয় সবজি আপনার লিভার ভালো রাখতে সাহায্য করবে। লিভার ভালো থাকলে শরীর থেকে দূষিত পদার্থ দূর করা সহজ হয়।

ঘুম যেন পর্যাপ্ত হয়: খাবার খাওয়ার মতোই আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অভ্যাস হলো ঘুম, যা কি না আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো রাখতে সাহায্য করবে। যতই পছন্দের সিনেমা দেখতে ইচ্ছে হোক, যতই বই পড়ার নেশা থাকুক, যতই ইন্টারনেট ব্রাউজিংয়ের জন্য মন আকুপাকু করুক, ঘুম বাদ দিয়ে রাত জেগে থাকা চলবে না। প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ঘুমাতে যান। টানা অন্তত আট ঘণ্টা ঘুমানোর অভ্যাস করুন। ঘুম মানে সময় নষ্ট করা নয়। ভালো ঘুম মানে হলো আপনার সুস্থতার চাবিকাঠি। স্ট্রেস, মানসিক চাপ, স্থুলতা সবকিছু থেকে দূরে থাকতে আপনাকে সাহায্য করবে পর্যাপ্ত ঘুম।

এবং শরীরচর্চা: শরীরচর্চা বাড়তি কোনো কাজ নয়। এটি আপনার প্রতিদিনের কাজেরই অংশ। আপনি অলসতা করে শরীরচর্চা বাদ দিলে সেটি আপনার জন্যই ক্ষতি ডেকে আনবে। প্রতিদিন পর্যাপ্ত শরীরচর্চা অন্যান্য রোগ দূরে রাখার পাশাপাশি বিভিন্ন ভাইরাল সংক্রমণের ভয়ও কমায়। শরীরে যদি ভিটামিন ডি এর মাত্রা কমে যায় তবে নিঃশ্বাসের সমস্যা হতে পারে। তাই প্রতিদিন রোদে অন্তত পনের মিনিট ব্রিস্ক ওয়াক শরীরে ভিটামিন ডি এর ঘাটতি পূরণ হবে।

দেখলেন তো, খুব সাধারণ ও পরিচিত কাজগুলোই আপনাকে কীভাবে সুস্থ ও শক্তিশালী করে তোলে! তাহলে আর অলসতা না করে নিয়ম মেনে চলতে শুরু করুন। প্রতিদিনের এই তিন কাজ মনোযোগ দিয়ে করলেই আপনার সুস্থতার পথে আর বাধা থাকবে না।