চোখ

করোনায় অন্ধত্বের ঝুঁকি জানতে শুরু হচ্ছে গবেষণা

করোনার ক্ষতি যে শুধু ফুসফুসে সীমাবদ্ধ নয় তা অনেক আগেই টের পেয়েছিলেন চিকিৎসকরা। তবে সেটা কতটা বিস্তৃত ও জটিল হতে পারে তা নিয়ে সংশয় ছিল। এবার নতুন আরও একটি শঙ্কার কথা জানিয়েছেন ভারতের চিকিৎসকরা।

তারা বলছেন, করোনা মহামারির মধ্যে চোখে কনজাঙ্কটিভাইটিসের মতো রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা যাচ্ছে। কিন্তু করোনার ফলে অন্ধত্বের প্রকোপও বাড়ছে কি না তা এখনও স্পষ্ট নয়। বিষয়টি জানতে এরই মধ্যে গবেষণা শুরু করেছে অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেস (এইমস)। করোনায় মৃতদের চোখে ভাইরাসের উপস্থিতি রয়েছে কি না তা দেখতে চোখের নানা অংশে পরীক্ষা করবেন সংস্থাটির বিজ্ঞানীরা।

ন্যাশনাল আই ব্যাংকের ৩৬তম চক্ষুদান পক্ষকালীন উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এইমসের আর পি সেন্টার ফর অপথ্যালমিক সায়েন্সের প্রধান ডক্টর জে এস টিটিয়াল এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যেই পাঁচটি নেত্রগোলক সংগ্রহ করা হয়েছে। কোভিডের ফলে কর্নিয়া, অপটিক নার্ভ বা রেটিনায় কোনো প্রভাব পড়ে কি না তা খতিয়ে দেখতেই এই গবেষণা চালানো হবে।

আর পি সেন্টারের আরেক চিকিৎসক ডক্টর নম্রতা শর্মার মতে, কোভিডের সঙ্গে অন্ধত্বের এখনও পর্যন্ত কোনও সরাসরি যোগাযোগ মেলেনি। বহু আক্রান্তরা কনজাঙ্কটিভাইটিসেও ভুগেছেন। কিন্তু তার ফলে দৃষ্টিশক্তি হারানোর খবর মেলেনি। যদিও মিউকরমাইকোসিসের প্রভাবে দৃষ্টিশক্তিতে ব্যাপক প্রভাব দেখা গেছে।