দিল্লি

দূষিত ১০ শহরের ৯টিই ভারতের

ভারতের রাজধানী দিল্লিসহ বেশ কিছু শহরে দিন দিন দূষণের পরিমাণ বাড়ছেই। ঘন ধোঁয়াশায় ঢাকা রাজধানী দিল্লিকে এখন গ্যাস চেম্বারের সঙ্গেও তুলনা করা হয়। এর সঙ্গে আবার পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ।

যতই দিন যাচ্ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ছে। এর মধ্যেই আশঙ্কাজনক তথ্য সামনে এলো। এক সমীক্ষায় উঠে এসেছে যে, প্যারিস চুক্তির আওতায় থাকা দেশগুলোর মধ্যে মোট ১০টি দূষিত শহরের মধ্যে নয়টিই রয়েছে ভারতের।

এর পেছনে রয়েছে যে যে কারণ থাকতে পারে তার একটি খসড়া পেশ করেছে ব্যাংক অব আমেরিকা সিকিওরিটিস। সেখানে বলা হয়েছে, ডিজেলের গ্রহণক্ষমতা কমানো, প্রাকৃতিক গ্যাস বাড়ানো, গঙ্গা নদী পরিস্কার করা ও শক্তি উৎপাদনে আরও দক্ষতা বাড়ানো এগুলোই দূষণ বাড়ানোর অন্যতম কারণ। বিশ্বে সবচেয়ে দূষিত শহরগুলোর মধ্যে শুধুমাত্র বাতাসই দূষিত নয়, এর মধ্যে পানি ও শব্দ দূষণও মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে বিশ্ব উষ্ণায়ণ প্রতিরোধে ভারতসহ ১৮৮টি দেশের মধ্যে প্যারিস জলবায়ু চুক্তি হয়। ২০১৯ সালে যুক্তরাষ্ট্র এই চুক্তি থেকে সরে আসার প্রক্রিয়া শুরু হয়। ২০১৯ সালের নভেম্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে প্য়ারিস চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসে আমেরিকা।

বিশ্ব ব্যাংকের তথ্য অনুসারে, ২০১৩ সালে দূষণের কারণে ভারতের উৎপাদনক্ষমতা ৮ দশমিক ৫ শতাংশ কমেছে। ২০৩০ সালের মধ্যে গ্রিন হাউজ গ্যাস নির্গমনের পরিসংখ্যান ৩৩ থেকে ৩৫ শতাংশের মধ্যে কমিয়ে আনায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ভারত।

২০১৯ সালেও বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত ১০ শহরের মধ্যে ৭টিই ছিল ভারতে। সবচেয়ে দূষিত শহর গুরুগ্রাম। গ্রিনপিসে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০১৮ সালে দূষিত শহরের তালিকায় সবার উপরে রয়েছে গুরুগ্রাম। শীর্ষ পাঁচে আরও তিনটি ভারতীয় শহর ছাড়াও রয়েছে পাকিস্তানের ফয়সালাবাদ। দূষিত শীর্ষ ৩০টি শহরের মধ্যে ২২টিই ভারতের।
অপরদিকে চীনের রয়েছে পাঁচটি, পাকিস্তানের দুটি ও বাংলাদেশের একটি।