সকালের নাস্তায়

সকালের নাস্তায় যা খেলে শরীর ভালো থাকবে

সকালের নাস্তায় বেশিরভাগ পরিবার ডিম খেয়ে থাকেন। অমলেট থেকে শুরু করে পোচ বা সিদ্ধ ডিম সকালের নাস্তায় জনপ্রিয়। তবে পুষ্টিবিদদের মতে, সকালের নাস্তায় ডিম খাওয়া ভালো। তবে যাদের বয়স চল্লিশের বেশি তাদের ক্ষেত্রে তেলে ভাজা ডিম না খেয়ে সিদ্ধ ডিম খা্ওয়া ভালো।

পুষ্টিগুণে ভরপুর ও প্রোটিনের সবচেয়ে সস্তা উৎস হওয়ায় বিশেষজ্ঞরা সকালের নাস্তায় ডিম রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। আধুনিক গবেষণার দাবি, ডিম শরীরে গুড কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়ায়। পুষ্টিবিদ সুমেধা সিংহের মতে, ডিমে রয়েছে উচ্চমানের প্রোটিন। এই প্রোটিন আমাদের মস্তিষ্ক আর পেশি গঠনে সাহায্য করে।

তিনি বলেন, ডিমে আছে এমন কিছু অ্যামিনো অ্যাসিড, যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মানসিক স্থিরতা বাড়ায়। তাই অ্যালার্জির ভয় না থাকলে ডিমের মতো সুপার ফুডের উপস্থিতি আপনার রোজকার ডায়েটে রাখতে পারেন। আসুন জেনে নেই যেভাবে ডিম খেলে উপকার পাবেন।

১. পুষ্টিবিদদের মতে, ডিম সেদ্ধ করুন এমন ভাবে যাতে ডিমের সাদাটি সুসিদ্ধ হয়ে যায় আর কুসুমটি থাকে নরম তুলতুলে। এই ভাবে ডিম খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য সবচেয়ে উপকারী।

২. ঠিক পদ্ধতি অনুসরণ করলে সেই পোচ রান্না হবে পানিতে কিন্তু তেলে নয়। একটা পাত্রে ডিমটা ভেঙ্গে তাতে সামান্য নুন আর গোলমরিচ গুঁড়ো যোগ করুন। খেয়াল রাখবেন ডিমের কুসুমটা যেন আস্ত থাকে। এরপর একটা বড় পাত্রে সামান্য ভিনিগার দিয়ে পানি ফুটিয়ে নিন। এ বার খুব সাবধানে ফুটন্ত পানিতে ডিমটা ছেড়ে দিন। দুই থেকে তিন মিনিটেই তৈরি হয়ে যাবে পোচ। ঝাঁঝরি দিয়ে পোচটি তুলে নিয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।

৩. অনেকেই হাফ বয়েল ডিমে আঁশটে গন্ধ পান। তাদের জন্য পুরো সেদ্ধ ডিমই ভালো। আট থেকে দশ মিনিট পানিতে ফুটিয়ে নিলেই তৈরি হবে সিদ্ধ ডিম। শুধু সকালের নাস্তায় নয় এসব উপায়ে মেনে ডিম খেতে পারেন দুপুরে খাবারে সময়। ডিম আপনার শরীরকে চাঙ্গা রাখবে।