মেহেদী

মেহেদীর ভেষজ গুণাগুণ

মেহেদী (Henna Samphire) এটি একটি মধ্যম আকৃতির গুল্ম জাতীয় গাছ। এর বৈজ্ঞানিক নাম Lawsonia inermis Linn। এর বাংলা নাম মেহেদী, ইউনানী নাম হেনা। এটি Lauraceae এর পরিবারভূক্ত।

এই গাছের উচ্চতা ৮ মিটার পর্যন্ত হতে পারে। বাকল নীলচে বাদামি। লম্বা পুষ্পদন্ডে গুচ্ছাকারে সুগন্ধময় সাদা বা হালকা গোলাপি ফুল হয়। মরু অঞ্চল ও সেমি-ড্রাই জলবায়ু মেহদি জন্মানোর জন্য অনুকুল। মহেদীর আদিবাস উত্তর আফ্রিকা ও দক্ষিণ-পশ্চিম এশিয়া।বর্ষাকালে প্রাপ্তবয়ষ্ক গাছে সাদা বা গোলাপি রঙের ছোট ছোট অসংখ্যা ফুল দেখা যায়। লম্বা পুষ্পদন্ডের চারদিকে ছোট বোঁটাবিশিষ্ট ফুল হয়। আকন্দ, সর্পগন্ধা ও ধুতরার মতো একই সময় ফুল ও ফল দেখা যায়। প্রায় মটরদানার আকারের ধূসর বর্ণের ফলের ভিতর ছোট ছোট ৫৮-৯৫টি বীজ থাকে। বীজ অথবা অঙ্গজভাবে (শাখা কাটিং) মহেদীর বংশবিস্তার সম্ভব।

তবে কাটিংয়ের সাহায্যে নতুন চারা উৎপাদন সহজ বলে আমাদের দেশে এ পদ্ধতিই অবলম্বন করাহয় এবং এ ক্ষেত্রে শতকরা ৭০-৮০টি চারা সহজেই পাওয়া যায়। সাধারণত ৬ মাসের কাটিং রোপণের জন্য উপযুক্ত এবং ৪/৫ বছরের গাছ থেকে পাতা আহরণ শুরু করা যায়। আগষ্ট-সেপ্টম্বর মাসে এই গাছে বোনা হয়। এই গাছ ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশে মহেদীর চাষ হয় করা হয়। এই গাছের ছাল, পাতা, বীজ ও ফুল ঔষধ হিসেবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

রাসায়নিক উপাদান: পাতা ও ছালে অনুজীব ধ্বংসী রঙ্গিন ন্যাথোকইনোন দ্রব্য, প্রচুর পরিমাণ ট্যানিন, কিছু গ্লাইকোসাইড, স্টেরল ও টার্পিন বিদ্যমান। যা অনেক সমস্যা সমাধান করে থাকে।

উপকারিতা: ১। মেহেদি গাছের মূল আতপ চাল ধোয়া পানি দিয়ে ঘষে সকালে ও বিকালে খেলে জন্ডিস ভালো হয়ে যায়। ২। সরিষার তেল, মেথি, মেহেদি পাতা সিদ্ধ একসঙ্গে মিশিয়ে চুলে ব্যবহার করলে খুশকি দূর হয়। ৩। মেহেদি পাতার রস ও সরষের তেল মিশিয়ে মালিশ করলে কঠিন ব্যথা ভালো হয়ে যায়। ৪। গায়ে ঘামের দুর্গন্ধ হলে মেহেদি পাতা সিদ্ধ করে গোসল করলে উপকার পাওয়া যায়। ৫। মেহেদী পাতার ফুল পিষে মাথায় লাগালে ব্যথা ভালো হয়ে যায়।

৬। মেহেদি পাতা ভিনেগারে ভিজিয়ে এক জোড়া মোজার ভিতরে রেখে দিন। এই মোজাটি পায়ে সারারাত পরে থাকুন। তাহলে পায়ের জ্বলাপোড়া কমে যাবে। ৭। মেহেদী পাতা সিদ্ধ করে সেই পানি দিয়ে কুলকুচি করলে মুখের ঘা ভালো হয়ে যায়। ৮। মাথায় টাক পড়লে মেহেদী পাতা সারিষার তেলের সাথে জ্বাল দিয়ে মাথায় লাগালে উপকার পাওয়া যায়। ৯। মেহেদী পাতা বেটে প্রলেপ দিলে ঘামচির চুলকানি এবং জ্বালাপোড়ায় উপকার পাওয়া যায়।