স্টেশনে ট্রেন এলেই সুতা দিয়ে বেঁধে ফেলেন ‘সুতা বাবা’

সোশ্যাল সাইট ফেসবুকে রেলফ্যানদের নিয়ে ‘বাংলাদেশ রেলওয়ে’ নামের বড় একটি গ্রুপ রয়েছে। যেখানে সারাদেশের রেলফ্যানরা নানা ঘটনা শেয়ার করে থাকেন। এবার ফিরোজ খানের সৌজন্যে জানা গেল এক ‘সুতা বাবা’র গল্প।

সেই ব্যক্তির নাম আসলে ‘সুতা বাবা’ নয় কিংবা তিনি পীর-ফকিরও নন। তার হাতে সবসময় একটা পুটলি থাকে। মানসিক প্রতিবন্ধী এই যুবকের কর্মকাণ্ডই তাকে এমন নাম উপহার দিয়েছে।

পাঁচাবিবি রেলওয়ে স্টেশনে কোনো ট্রেন এসে দাঁড়ালেই ‘সুতা বাবা’র ব্যস্ততা শুরু হয়ে যায়। হাতের পুটলি থেকে সুতার গুটলি বের করে সে ট্রেনের সঙ্গে বাঁধতে শুরু করে। দেখে মনে হয়, যেন সুতা দিয়ে ট্রেন বেঁধে রাখবে- এমন একটা ব্যাপার।

কিন্তু আসলে তা নয়; ট্রেন ছেড়ে দিলে গুটলি থেকে সুতা ছাড়তে থাকেন সেই যুবক। এভাবেই চলে খেলা। এতেই তার আনন্দ। কেউ তাকে কখনও দয়া করে ভিক্ষাটিক্ষা দিলে সেই টাকায় সুতা কিনে আনে। তারপর ট্রেনের সঙ্গে মেতে উঠে খেলায়।

এমন একটি ঘটনা শেয়ার করে ফিরোজ খান লিখেছেন, ‘ছবিতে যে ছেলেটিকে দেখতে পারছেন তার নাম সুতা বাবা। যদিও তার আসল নাম এখনও জানতে পারি নি। ট্রেন এলেই সে সুতা দিয়ে ট্রেনকে বেধে দেয় এবং ট্রেনের পাশেই বসে থাকে। এতেই সে খুব আনন্দ পায়। গত দুদিন আগে নামাজ শেষ করে বাসায় ফিরছিলাম। হঠাৎ করে দেখা এই সুতা বাবার সাথে।’

‘ছেলেটির হাতে প্রায় ৫-৬ কাটিম সুতা ছিল।।তাকে জিজ্ঞাসা করলাম,এত্তগুলা সুতা কি করবেন? ছেলেটি হাসিমুখে উত্তর দিল,ট্রেন।।আর কিছু বললো না।।বুঝতে বাকি রইল না সেও রেলফ্যান। কি পাগল হইলে কি রেলফ্যান হওয়া যায় না? আরে ভাই, পাগলরাই তো রেলফ্যান হয়।’