জুস

তীব্র গরমে বেড়েছে মাঠা-লাচ্ছি-জুসের চাহিদা

কয়েকদিনের টানা তাপদাহে পুড়ছে রাজধানী সহ দেশবাসী। তীব্র গরমে নাকাল হয়ে পড়েছে জনজীবন। সারাদিন রোজা রেখে প্রশান্তির ইফতারে তাই বেশি থাকছে পানীয় জাতীয় খাবার।

এই গরমে রোজাদারের নিয়মিত ইফতারে অবধারিত ভাবে জায়গা করে নিয়েছে মাঠা, লাচ্ছি, ফলের জুসসহ বিভিন্ন রকমের শরবত জাতীয় পানীয়। জুসবার গুলোতেও বেড়েছে ক্রেতাদের ভীড়। মাঠা, লাচ্ছির দোকানে নিয়মিত ক্রেতা সমাগম থাকলেও রমজানে বাড়তি চাপ লক্ষ্য করা গেছে। সামাল দিতে হচ্ছে বলেও জানান বিক্রেতারা।

এ বিষয়ে রবিউল ইসলাম নামের এক জুস বিক্রেতা বলেন, ‘গরমের কারণে আমাদের দোকানে চাপ আগের তুলনায় একটু বেশী আর রমজান উপলক্ষে ইফতারের সময় আরও বেশী চাপ থাকে। জুস বানিয়ে শেষ করতে পারি না।’

ইসমাইল হোসেন নামে এক ক্রেতা বলেন, সারাদিন রোজা রাখার পর যখন ইফতার করি তখন শরবতই বেশি খাই। আর আমাদের পুরাতন ঢাকার ঐতিহ্য মাঠা এটা রমাজান মাসে সবাই খেয়ে থাকে। আবার অনেকেই বাসায়ই তৈরি করছেন লেবুর শরবতসহ নানা জাতীয় পানীয়। এ কারণে ভীড় বেড়েছে বরফের দোকানগুলোতে।