1

মরণ রোগ ক্যান্সার সারাবে খেজুর, কিন্ত কীভাবে খাবেন?

আমরা সবাই জানি খেজুরকে জীবনদায়ী ফল বলা হয়ে থাকে। এটা শুধু কথার কথা নয়। বর্তমানে কথাটা যথেষ্ট প্রাসঙ্গিক। বর্তমানে মারণরোগ হিসেবে ক্যানসারের যথেষ্ট সুনাম আছে। নিঃসারে মানুষের শরীরে ঢুকে তার সমস্ত শরীরটাকে শেষ করে তাকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়ায় এই রোগের জুড়ি মেলা ভার।

বিশ্বের তাবড় তাবড় ডাক্তার, সায়েন্সটিস্ট, ইনস্টিটিউট এই একটা রোগের পেছনে আদাজল খেয়ে লেগে থাকলেও খুব আশানুরূপ ফল শোনাতে পারেননি কেউই। এই মারনরোগের অব্যর্থ ওষুধ নিয়ে গবেষণা এখনো চলছে।

তবে বেশ কিছু স্টাডিতে দেখা গেছে প্রতিদিন তিনটে করে খেজুর খেলে শরীরে এমন কিছু উপাদানের মাত্রা বৃদ্ধি পায় যে, তার প্রভাবে ক্যান্সার সেলের জন্মে নেওয়ার আশঙ্কা যায় কমে।

ফলে ক্যান্সারের মতো মরণব্যাধি ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। এছাড়াও নিয়মিত খেজুর খাওয়া শুরু করলে দেহের ভেতরে পটাশিয়ামের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। এর প্রভাবে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে চলে আসতে সময় লাগে না।

আপনাকে সবসময় খেয়াল রাখতে হবে, শরীরে আয়রনের ঘাটতি যেন কখনো দেখা না যায়। আর এক্ষেত্রে খেজুর দারুনভাবে সাহায্য করতে পারে। কীভাবে? এই ফলটি আয়রন সমৃদ্ধি। তাই রোজ।এই ফল খেলে আপনি নিস্তার পাবেন অ্যানিমিয়ার হাত থেকেও।