জেনে নিন বাংলাদেশে কত ঘণ্টা থাকবে ফণী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘূর্ণিঝড় ফণী মোকাবেলায় সম্বলিত ভাবে সকলকে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন। অন্যদিকে শনিবার ভোর রাত থেকে ফণীর প্রভাবে সারাদেশে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি হচ্ছে। কোথায় কোথায় বৃষ্টিসহ বজ্রপাতের খবর পাওয়া গেছে।

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণী বাংলাদেশে ৬ থেকে ১০ ঘণ্টা অবস্থান করতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শামছুদ্দিন আহমেদ।

শুক্রবার (৩ মে) ১০টায় আবহাওয়া অধিদপ্তরে আয়োজিত এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান তিনি। সামছুদ্দিন আহমেদ বলেন, খুলনার উপকূল দিয়ে প্রবেশের পরিবর্তে সাতক্ষীরা-নড়াইলের উত্তর দিক দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে ঘূর্ণিঝড় ফণী। এটি বাংলাদেশে ৬ থেকে ১০ ঘণ্টা অবস্থান করতে পারে।

তিনি আরও জানান, ঘূর্ণিঝড়টি প্রতি ঘণ্টায় প্রায় ২১ কিলোমিটার গতিতে অগ্রসর হচ্ছে। সাতক্ষীরার উত্তর দিকে নড়াইল, ঝিনাইদহ, চাঁপাইনবাগঞ্জ হয়ে ক্রমশ তা আরও উত্তর দিকে চলে যাবে।

এদিকে শনিবার (৪ মে) সকাল ৮টার দিকে বাংলাদেশে ঢুকেছে ফণী। আঘাত হানতে যাচ্ছে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল দিয়ে। প্রভাবে পানির প্রবাহিত হতে পারে ২ থেকে ৪ ফুট উপর দিয়ে।

আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সাতক্ষীরা, যশোর, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, ঝিনাইদহ ও রাজশাহী হয়ে সারাদেশে ছড়িয়ে যাবে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়টি।

ইতিমধ্যে, সাতক্ষীরা, যশোর, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, নড়াইল, ঝিনাইদহ, রাজশাহী, বাগেরহাট, লক্ষীপুর, ফেনী, খুলনা, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরিশাল, বরগুনা, চাঁদপুর, পটুয়াখালী ও চট্টগ্রাম জেলাকে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে শনিবার (৪ মে) সকাল ১১টা থেকে ১২টার মধ্যে বাংলাদেশের উপরে আঘাত হানতে পারে শক্তিশালী ফণী। ঝড়ের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১০০ থেকে ২০০ কিলোমিটার। সেই সাথে দিনভর ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগ আভাস দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।

ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে শুক্রবার (৩ মে) সারাদেশে ১৪ জন নিহত হবার খবর পাওয়া গেছে। সেই সাথে শত-শত ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে।