মাওলানা মোহাম্মাদ বশির আহমদ (শেখে বাঘা) রাহ.

জন্ম: ১৮৯৫ইং সনে সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ থানার ১নং বাঘা ইউনিয়নস্থ দক্ষিণ বাঘা নামক পলস্নীতে এক দ্বীনদার সম্ভ্রামত্ম মুসলিম পরিবারে তিনি জন্ম গ্রহণ করেন। তাহার পিতার নাম জনাব খুরশিদ আলী এবং মাতার নাম ছালিমা খাতুন।

শিক্ষা: প্রথমে স্থানীয় মক্তব এবং পরে তৎকালীন এলাকার প্রাচীনতম প্রতিষ্ঠান ফুলবাড়ী আজিরিয়া মাদ্রাসায় শিক্ষা গ্রহণের পর উচ্চ শিক্ষা লাভের জন্য ভারত চলে যান। সেখানে কুতবুল আলম হযরত আল্লামা হোসাইন আহমদ মদনী (রহঃ) এর পরামর্শে ভারতের মুরাদাবাদ শাহী মাদ্রাসায় ভর্তি হন। মুরাদাবাদ শাহী মাদ্রাসার তৎকালীন শায়খুল হাদীস আল্লামা ফখরুদ্দীন মুরাদাবাদীর কাছে হাদীস, তাফসীর ইত্যাদি বিষয় অধ্যয়ন করে টাইটেল পাশ করেন।

দীক্ষা: শাহী মুরাদাবাদ থেকে ইলমে যাহির অর্জন করার পর আত্মশুদ্ধির উদ্দেশ্য কুতবুল আলম আল্লামা সায়িদ্যদ হোসাইন আহমদ মদনী (রহঃ) এর পবিত্র হস্থে বাইয়াত গ্রহণ করেন। কঠোর পরিশ্রম ও মুজাহাদার মাধ্যমে আত্মশুদ্ধির স্থর সমূহ অতিক্রম করে স্বল্প সময়েই খেলাফত লাভে ধন্য হন।

কর্মজীবন: খেলাফত লাভের পর স্বীয় মুর্শিদের নির্দেশ অনুযায়ী স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করে দ্বীন ইসলামের খেদমতে আত্মনিয়োগ করেন। বিজাতীয় কালচার থেকে মুসলিম সমাজকে রক্ষার জন্য ইসলামী শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে ১৯২৯ইং সনে বাঘা গোলাপনগর আরাবিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন। ওয়াজ, নছিহত এবং তাসাওউফের মাধ্যমে মুসলিম সমাজের কুসংস্কার দুরীকরণ এবং মানুষকে দ্বীনের দাওয়াতের এক বিরল খেদমত আনজাম দিয়াছেন। বাতিলের বিরুদ্ধে তিনি ছিলেন এক বলিষ্ট কন্ঠস্বর। এজন্য তাঁহাকে বেশ কয়েকবার কারাবরণ এবং জুলুম অত্যাচার সহ্য করতে হয়েছে।

পরলোকগমন: ২৩ শে শাওয়াল ১৩৯১ হিজরী, ২৫ অগ্রহায়ন ১৩৭৮ বাংলা মোতাবিক ১৩ইং ডিসেম্বর ১৯৭১ ইং রোজ রবিবার বেলা ১১ ঘটিকার সময় ৭৬ বছর বয়সে এই মুজাহিদে মিল্লাত, সুন্নতে নববীর মূর্ত প্রতীক এ নশ্বর জগতের বন্ধন ছিন্ন করে পরলোকে পরম বন্দুর চরম সান্নিধ্যে চির প্রস্থান করেন। ইন্নালিল্লাহি ……। মৃত্যুকালে তিনি ৪জন স্ত্রী ৯জন ছেলে, ৪জন মেয়ে এবং অসংখ্যা ভক্ত-মুরীদ রেখে যান। বাঘা গোলাপনগর আরাবিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার পুরাতন মসজিদের উত্তর পার্শ্বে তাঁকে সমাহিত করা হয়।