বাস

ঢাকাসহ বড় শহরগুলোতেক ভোর থেকেই চলছে বাস

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের উর্ধ্বগতি ঠেকানোর জন্য সরকার ‘লকডাউন’ বা চলাচলে বিধিনিষেধ দিলেও বুধবার থেকে ঢাকা ও অন্যান্য মহানগরীতে বাস চলাচল শুরু হয়েছে।

ঢাকা শহরের বিভিন্ন রাস্তায় আজ সকাল থেকেই বহু বাস চলাচল করতে দেখা গেছে। বাসগুলোতে ভোর থেকেই উল্লেখযোগ্য সংখ্যক যাত্রী পরিবহন লক্ষ্য করা গেছে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে পরিবহন সংশ্লিষ্টরা বরাবরের মতোই উদাসীন।

রাস্তায় যেসব বাস চলতে দেখা গেছে সেখানে বেশির ভাগ চালক ও তাদের সহকারীর মুখে কোনো মাস্ক পরিধান করতে দেখা যায়নি। ‘লকডাউনের’ দ্বিতীয় দিনের মাথায় এসে গতকাল ঘোষণা করা হয়েছে যে বুধবার থেকে ঢাকা এবং অন্যান্য মহানগরীতে গণপরিবহন চলবে।

সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত এই চলাচলের সুযোগ থাকবে বলে জানানো হয়েছে। তবে এসময় পাবলিক বাসগুলোতে ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী পরিবহন করা হবে। এছাড়া দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ থাকবে। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের মঙ্গলবার ব্রিফিং-এর মাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছেন।

পরিবহন চলাচলের ক্ষেত্রে কিছু শর্ত আরোপ করা হয়েছে। এসব শর্তের মধ্যে রয়েছে পরিবহন সংশ্লিষ্ট সবাই এবং যাত্রীদের মাস্ক ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক। এছাড়া প্রতি ট্রিপের পরে পরিবহন জীবাণুমুক্ত করার শর্তও দেয়া হয়েছে।

‘লকডাউনের’ সময় অফিসের যাত্রীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে গণ-পরিবহন চালানোর অনুমতি দেয়া হয়েছে বলে জানান ওবায়দুল কাদের।

এর আগে গত ৩০ মার্চ বাংলাদেশ করোনা পরিস্থিতিতে অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় বাস ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব অনুমোদন করেছে ।

বাংলাদেশে সোমবার থেকে লকডাউন শুরুর পর একমাত্র গণপরিবহন ছাড়া অন্য সব ধরণের বাহন রাস্তায় চলাচল করছিল। তবে এখনো ট্রেন ও অভ্যন্তরীণ বিমান চলাচল বন্ধ থাকবে। সূত্র: বিবিসি