সংযুক্ত আরব আমিরাত, UAE

আমিরাতে শিগগিরই বন্ধ ভিসা চালু হবে

সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ডা. মোহাম্মদ ইমরান বলেছেন, আমিরাতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নতি হযেছে, শিগগিরই ভিসা সমস্যার সমাধান হবে। দীর্ঘ আট বছর ধরে বন্ধ থাকা দেশীয় শ্রমিকদের ভিসা ও ভিসা পরিবর্তন চালু হবে।

আবুধাবির যুবরাজ শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান আগামী মার্চ মাস নাগাদ বঙ্গবন্ধু জন্ম শতবার্ষিকীতে বাংলাদেশ সফর করবেন। তিনি শনিবার (১৮ জানুয়ারি) আমিরাতের সর্ববৃহৎ সংগঠন বঙ্গবন্ধু পরিষদ আবুধাবি কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে তাঁর বিদায় উপলক্ষে আয়োজিত বিদায় সংবর্ধনা সভায় সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

আবুধাবীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলের লিউয়া মজলিসে অনুষ্ঠিত এ বিদায় সংবর্ধনায় বঙ্গবন্ধু পরিষদ আবুধাবী কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা আমিরাত সরকারের ইয়ার অব জায়েদ-২০১৮ আলহাজ্ব ইফতেখার হোসেন বাবুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা নাসির উদ্দিন তালুকদার।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আবুধাবির জায়েদ ভার্সিটির অধ্যাপক ড. হাবীবুল হক খন্দকার, দূতাবাসের ডেপুটি চীফ অব মিশন মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।

সংগঠনের সিনিয়র সহসভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা ইমরাদ হোসেন ইমুর সূচনা বক্তব্যের পর বক্তব্য রাখেন- সংগঠনের সহসভাপতি মোহাম্মদ জামশেদ আলম, যুগ্ম সাধারণ মানুষের মউন উদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলামুর রহমান ইফতি, যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির বাপ্পী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ জমির হোসেন, মোহাম্মদ আইয়ুব খান, আবুধাবী যুবলীগের সভাপতি জাকির হোসেন জসিম, মোচ্ছাফ্ফা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আজিম উদ্দিন সিকদার, আল আইন বঙ্গবন্ধু পরিষদের আবদুল কাদের সিদ্দিকী, জনতা ব্যাংকের সিইও আমিরুল ইসলাম, ইঞ্জিনিয়ার আশীষ কুমার বড়ুয়া প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বিদায়ী রাষ্ট্রদূত আরো বলেন, তিনি দূতাবাসের সেবার মান উন্নয়নের পাশাপাশি নির্দিষ্ট সময়ে এমআরপি বিতরণ আর বিগত ২০১৮ সালে আমিরাত ঘোষিত সাধারণ ক্ষমায় অবৈধ দেশীয় অভিবাসীদের বৈধ করণের মতো চ্যালেঞ্জিং কাজ সবার সহযোগিতা নিয়ে সুচারুভাবে সম্পন্ন করেছেন। তিনি আরো বলেন, বিগত ১১ মাসের মাসের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী আমিরাতে তিন তিনবার সফর করাও আমিরাতের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কের বড় একটা মাইলফলক।

অনুষ্ঠানের সভাপতি আলহাজ্ব ইফতেখার হোসেন বাবুল বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের বিভিন্ন কাজকর্মের কথা উল্লেখ করে বলেন, বিদায়ী রাষ্ট্রদুত ডা. মোহাম্মদ ইমরান সকলের একজন সত্যিকারের প্রবাসবান্ধব কাছের মানুষ ছিলেন।

পরে সংগঠনের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রদূত ও রাষ্ট্রদূত পত্নীকে ক্রেস্ট ও উপহার দেওয়া হয়।