আইসিজেতে গণহত্যা মামলার শুনানি পর্যবেক্ষণে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ

রাখাইনে রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত আইসিজেতে গণহত্যা মামলার শুনানি পর্যবেক্ষণে বাংলাদেশ থেকে ২০ জনের একটি প্রতিনিধিদল যাচ্ছে।

১০ ডিসেম্বর মঙ্গলবার শুরু হতে যাওয়া শুনানিতে বাংলাদেশ থেকে পর্যবেক্ষণে যাওয়া প্রতিনিধিদলে সরকারি কর্মকর্তা ছাড়াও থাকবেন নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি ও কক্সবাজারে আশ্রয় নেওয়া তিনজন রোহিঙ্গা নারী ও পুরুষ। আজ রোববার তাঁদের নেদারল্যান্ডসের উদ্দেশে রওনা হওয়ার কথা রয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। একটি সূত্র জানায় প্রতিনিধিদলের সদস্যরা রোববার ও সোমবার দুই ভাগে ভাগ হয়ে নেদারল্যান্ডসে যাত্রা করবেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কয়েকজন কর্মকর্তা জানান, প্রতিনিধিদলের নেতৃত্বে থাকবেন পররাষ্ট্রসচিব মো. শহীদুল হক। মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, মূলত শুনানি পর্যবেক্ষণ করতেই সেখানে উপস্থিত থাকবেন তাঁরা।

আইসিজের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, নেদারল্যান্ডসের পিস প্যালেসে অবস্থিত আইসিজেতে আগামী মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) গাম্বিয়ার বক্তব্যের মধ্য দিয়ে রোহিঙ্গা গণহত্যার মামলার শুনানি শুরু হবে। ১১ ডিসেম্বর বক্তব্য উপস্থাপন করবে মিয়ানমার।

এরপর ১২ ডিসেম্বর সকালে গাম্বিয়া পাল্টা যুক্তি দেবে মিয়ানমারের বিপক্ষে। আর দুপুরে মিয়ানমার গাম্বিয়ার জবাব দেবে। আইসিজেতে গণহত্যা মামলায় মিয়ানমারের পক্ষে বক্তব্য দেবেন দেশটির স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি। সব মিলিয়ে শুনানি চলবে তিন দিন।

এর আগে গত ১১ নভেম্বর ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) সমর্থনে গাম্বিয়া মিয়ানমারের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে মামলাটি করে। গাম্বিয়াও গণহত্যা সনদে স্বাক্ষরকারী দেশ।

কক্সবাজারে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আইসিজেতে ১০ ডিসেম্বর থেকে অনুষ্ঠেয় শুনানির সময় বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের একটি প্রতিনিধিদল নেদারল্যান্ডস যাচ্ছে। সেখানে ইউরোপসহ বিশ্বের নানান প্রান্ত থেকে রোহিঙ্গাদের অন্য দলও যাবে। তারা আদালতের বাইরে রাখাইনের নৃশংসতার বিরুদ্ধে উচ্চকণ্ঠ হবে।