সুলি

নিজ ঘর থেকে পপ তারকার মরদেহ উদ্ধার

তিনি যেমন ছিলেন জনপ্রিয় তেমনি তাকে ঘিরে সমালোচনারও শেষ ছিলো না। তাই দক্ষিণ কোরিয়ার গণমাধ্যমে তার নামের আগে জনপ্রিয় কথাটির পাশাপাশি বিতর্কিত বিশেষণটিও লিখতেন।

তবে আর কখনোই কোনো বিশেষণের জন্য উচ্ছ্বসিত বা মন খারাপ করবেন না পপ তারকা সুলি। তিনি আর নেই। গেল সোমবার দেশটির রাজধানী সিউলে নিজ বাড়ি থেকেই তার মরদেহ পাওয়া যায়।

তার মৃত্যু নিয়ে রসহ্য ছড়ালেও তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলেই আপাতত ধারণা করছে পুলিশ। সিউলের পুলিশের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, প্রাথমিক তদন্তে আত্মহত্যার বিষয়টি প্রতীয়মান হয়েছে। পুলিশ বলছে, তারা সুলির অস্বাভাবিক এই মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেছে।

এই পপতারকা স্পষ্টবাদী বক্তব্য ও বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ আলোচিত। ইনস্টাগ্রামে তার অনুসারীর সংখ্যা ৫০ লাখ। তিনি ‘নো ব্রা’ আন্দোলনের জন্য আলোচিত। এ নিয়ে তাকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকবার হয়রানির শিকার হতে হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সাল পর্যন্ত সুলি দক্ষিণ কোরিয়ার জনপ্রিয় ব্যান্ড এফের (এক্স) সদস্য ছিলেন।২০১৫ সালে যখন ব্যান্ড ছেড়ে দেন তখন তিনি কারণ হিসেবে অভিনয়ের দিকে বেশি মনযোগ দেয়ার কথা জানান। অনেকে মনে করেন, সুলিকে নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হওয়ার পর তাকে ব্যান্ড থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল।

সুলির প্রকৃত নাম চোই জিন রি। ২০১৭ সালে সুলির ঘনিষ্ঠ বন্ধু আরেক কোরিয়ান পপ তারকা জং হিউন ২৭ বছর বয়সে আত্মহত্যা করেন। সুলি সম্পর্কে বিবিসির বিনোদন সাংবাদিক টেইলর গ্লাসবি বলেন, মুক্তমনা সুলি নিজের মতো জীবন যাপন করতে চাইতেন। কিন্তু রক্ষণশীল কোরীয় সমাজ তা মেনে নিত না। হয়তো সেকারণেই মানসিক চাপ থেকে হতাশায় নিমজ্জিত হয়ে তিনি মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে নিলেন।