এখন রাজনীতি কেনা হয়, টাকা হলে মন্ত্রী-এমপি হওয়া যায় : শেখ মারুফ

দেশের রাজনীতিতে অনুপস্থিতির কারণ জানিয়েছেন যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুর রহমান মারুফ। তিনি বলেন, আমি রাজনীতি করি না, সেটা না রাজনীতি করতে চাই। কারণ রাজনীতি থেকেই আমার জন্ম।

আমি পাশে থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এবং বড় ভাই শেখ ফজলুল হক মনিকে দেখেছি। তাদের দেখেছি মানুষের জন্য রাজনীতি করতে নিজের জন্য নয়। অর্থাৎ তাদের যে ত্যাগ তিতিক্ষা, তারা দেশের জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করে দিয়েছিলেন একটি সোনার বাংলা গড়ার জন্য। যার প্রভাব আমার মধ্যে কাজ করছিল, তখন তরুণ ছিলাম।

শেখ ফজলুর রহমান মারুফ বলেন, মুক্তিযুদ্ধে সেজন্য গিয়েছিলাম। দেশ স্বাধীন হওয়ার পরে ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরে শেখ ফজলুল হক মনি এবং আমাদের পরিবারের সবাইকে হত্যা করা হল। তারপর যে উল্টা-পাল্টা রীতি নীতি এসে গেল, এখান থেকে প্রায় ২০-২২ বছর আমরা অনেক পিছিয়ে গেলাম।

তিনি আরও বলেন, গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা এবং জাতীয়তাবাদের ভিত্তির উপরই তো আমরা দেশ স্বাধীন করেছিলাম। রাজনীতি হচ্ছে একটা আইডলজি সামনে রেখে নেতা, কর্মী থেকে নেতা তৈরি করা হয়। এখন সেই ইনস্টিটিউশন ভেঙে গেছে।

আর যোগ্যতা থাকলে যে কাজ করতে পারবে না, তা নয়। আগে নেতারা কি করতো? কোন কলেজে, কোন ইউনিভার্সিটিতে একটা ছেলে আছে তাকে পিক করত, তাকে তুলে আনত। তাকে ধাপে ধাপে ধাপে ধাপে তাকে লিডার বানাত তার যোগ্যতা অনুযায়ী।

এখন রাজনীতি করতে হলে যে নেতৃত্ব, তাকে বুঝতে হবে যে একে দরকার আছে কিনা। এখন নিজের গায়ের জোর করে আমার যোগ্যতা আছে বলে আমি রাজনীতি করবো, এটা কলহ ছাড়া আর কিছুই হবে না।

শেখ ফজলুর রহমান বলেন, এখন রাজনীতি কেনা হয়, টাকা হলে মন্ত্রী-এমপি হওয়া যায়। টাকা হলেই সংগঠনে ঢোকা যায়। এখন আর যোগ্যতা অনুযায়ী হয় না, কমিটি করতে হলে ভালো টাকা দিলেই যে যেটা পোস্ট পাওয়ার কথা না সেটাই পায়।

এজন্য আমি যে রাজনীতি করি না তা না, আমি রাজনীতি করার পথ পাচ্ছি না, সুযোগ পাচ্ছি না। কারণ আমি তাদের মত বদনাম নিতে চাই না, রাজনীতি আমার উপার্জনের পথ না। রাজনীতিক একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে আমার দায়িত্ব এবং কর্তব্য।

এই দেশ আমাদের। ৩০ লাখ শহীদের বিনিময়ে স্বাধীন হয়েছে। দেশ রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব। এই দেশের নেতৃত্ব দেয়ার দায়িত্ব আমাদের। এই দেশ গড়ার দায়িত্ব আমাদের।

(শেখ মারুফের বক্তব্য সংগৃহীত এই ভিডিও থেকে)