1

শেষ ২০ ওভার টি-টোয়েন্টি স্টাইলে খেলার প্লান ছিল: তামিম

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লড়াকু হারের পর আক্ষেপে পোড়াচ্ছে বাংলাদেশ দলের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবালকে। সাকিবের সঙ্গে তার জুটিটা লম্বা করতে না পারার আক্ষেপ তার।

ম্যাচ শেষে তামিম বলেন, ‘ভুল সময়ে আমি আউট গেলাম। সাকিব আর আমার জুটি ভালো হচ্ছিল, সেও ভুল সময়ে আউট হলো। আমরা ভালো খেলেছি, তবে আরও ভালো হতে পারত যদি আমরা ভুল সময়ে উইকেট না হারাতাম।’

বাংলাদেশ নিজেদের ওয়ানডে ইতিহাসের সর্বোচ্চ রান করেছে বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ট্রেন্ট ব্রিজে। তবে ৩৩৩ রান করেও জয় ধরা দেয়নি। অস্ট্রেলিয়ার ৩৮১ রানের পাহাড়ের টার্গেটে ব্যাট করে অসাধারণ খেলেন মুশফিক-মাহমুদুল্লাহরা। এদিন সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালও অসাধারণ খেলতে থেকে আউট হয়ে যান। তারা ইনিংসটা আরও বড় করতে পারলে গল্পটা অন্যরকম হতে পারত।

শুরুতে সৌম্য সরকারকে রান আউটে হারানোর পর দ্বিতীয় উইকেটে তামিম ও সাকিব আল হাসান গড়েন ৭৯ রানের জুটি। এই জুটি এগোনোর পথে সাকিব আউট হয়ে যান ৪১ বলে ৪১ করে।

বড় রান তাড়ায়ও একটু সময় নিয়ে নিজের মতো করে খেলেছেন তামিম। ফিফটি করেন ৬৫ বলে। এরপর যখন তার আরও বড় ইনিংস খেলার কথা, উল্টো ৬২ রানে মিচেল স্টার্কের বল টেনে আনেন স্টাম্পে।

তামিম জানান, শেষ ২০ ওভার টি-টোয়েন্টি স্টাইলে খেলার পরিকল্পনা ছিল। ‘বড় স্কোর রান তাড়ার অভিজ্ঞতা আমাদের খুব বেশি নেই। আমি যেটা করছিলাম যে স্কোরবোর্ডের দিকে তাকাচ্ছিলাম না। চেষ্টা করছিলাম যে ৩০ ওভার পর যদি ১৮০-২০০ রানের মধ্যে থাকি, তাহলে শেষ ২০ ওভারে সুযোগ নিতে পারি। আগেই বেশি আগ্রাসী হতে গিয়ে উইকেট হারিয়ে যদি খেলা নষ্ট করে দেই, তাহলে কিছুই হবে না। এই ৩৩০-৩৪০ রানও হতো না। পরিকল্পনা ছিল শেষ ২০ ওভারে ১৭০-১৮০ করার, টি-টোয়েন্টিতে যেটি অনেক সময়ই হয়ে থাকে।’

তবে সেই সম্ভাব্য ছবি নষ্ট হয়ে গেছে নিজেদের ভুলেই, অকপট স্বীকারোক্তি এই ওপেনারের। ‘ঝামেলা হয়েছে যে, ভুল সময়ে আমি আউট গেলাম, যোগ করেন তামিম।