প্রধানমন্ত্রীকে কাছে পেয়ে উচ্ছ্বসিত প্রবাসীরা

ইউরোপ প্রবাসীদের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন দেশটিতে সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী গতকাল বিকেলে তার ত্রিদেশীয় সফরের শেষ গন্তব্য ফিনল্যান্ড পৌঁছান। এ সময় দেশটির নেতাকর্মীরা নেত্রীকে কাছে পেয়ে উচ্ছ্বসিত হয়ে ঈদের শুভেচ্ছা জানান।

প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে লুফথানসা এয়ারের একটি বিমান বেলা ১টা ১০ মিনিটে (স্থানীয় সময়) ফিনল্যান্ডের হেলসিনকি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। প্রধানমন্ত্রী ফিনল্যান্ডের হেলসিনকি যাওয়ার পথে জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্ট আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রায় চার ঘণ্টার যাত্রা বিরতি নেন।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী এবার ঈদ করেছেন বোনের বেয়াই বাড়ির দেশ ফিনল্যান্ডে। শেখ হাসিনার আগমনকে কেন্দ্র করে ঈদের আগের দিন থেকেই ইউরোপের বিভিন্ন দেশের নেতাকর্মীরা ফিনল্যান্ডে জড়ো হতে শুরু করেন। ইউরোপ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা খুব কাছ থেকে দলীয় প্রধানের সঙ্গে সাক্ষাত করেন।

এ সময় নেত্রীকে কাছে পেয়ে খুশিতে উচ্ছ্বসিত হন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। হোটেলের সামনে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্রবাসীদের কুশল বিনিময় হয়। উপস্থিত ছিলেন সর্ব ইউরোপ আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমান, ফ্রান্স আওয়ামী লীগ সভাপতি বেনজির আহমেদ সেলিম।

এ ছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন ইতালি আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম এ রব মিন্টু, ফিনল্যান্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল ইসলাম, ফ্রান্স আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কয়েচ, রোম মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজী সুইট প্রমুখ।

জানা গেছে, গত মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রবাসীদের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। ইতালি আওয়ামী লীগের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম এ রব মিন্টু। তিনি শেখ রেহানার পুত্র রেদোয়ান ববির সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী সৌদি আরবে তিন দিনের এক সরকারি সফর শেষে স্থানীয় সময় রাত ১টা ৩০ মিনিটে জেদ্দার বাদশাহ আবদুল আজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ফিনল্যান্ডের উদ্দেশে যাত্রা করেন।

ফিনল্যান্ড সফরকালে শেখ হাসিনা ৪ জুন দেশটির প্রেসিডেন্ট সাউলি নিনিস্তোর সঙ্গে বৈঠক করবেন। ৭ জুন বিকেলে প্রধানমন্ত্রী ঢাকার উদ্দেশে ফিনল্যান্ড ছাড়বেন। পরের দিন তিনি ঢাকায় পৌঁছাবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

এর আগে ২৮ মে প্রধানমন্ত্রী টোকিওর উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন। জাপান, সৌদি আরব ও ফিনল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সফরের প্রথম ভাগে তিনি জাপান সফর করেন।

শেখ হাসিনার চার দিনের জাপান সফরকালে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও দৃঢ় করতে দুই দেশের মধ্যে আড়াই বিলিয়ন ডলারের ৪০তম অফিশিয়াল ডেভেলপমেন্ট অ্যাসিসটেন্স (ওডিএ) চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের মধ্যে একটি দ্বিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

পাশাপাশি, প্রধানমন্ত্রী জাপানে ‘দ্য ফিউচার অব এশিয়া’ শীর্ষক নিক্কেই আন্তর্জাতিক সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, তার সম্মানে আয়োজিত একটি অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন এবং জাপানের ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে একটি ভোজসভায় অংশ নেন।

এ ছাড়া এ সফরকালে হোলি আর্টিজানের ঘটনায় নিহত জাপানি নাগরিকদের পরিবারের সদস্যরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন। জাইকার প্রেসিডেন্ট শিনিচি কিতাওকা পৃথকভাবে শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেন। ৩১ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি আরবের উদ্দেশে জাপান ত্যাগ করেন। তিনি মক্কায় ১৪তম ওআইসি শীর্ষ সম্মেলন ২০১৯ তে অংশ নেন।

তিন দিনের সৌদি আরব সফরকালে প্রধানমন্ত্রী মক্কায় ওআইসি ইসলামিক শীর্ষ সম্মেলনের ১৪তম অধিবেশনে যোগ দেন, পবিত্র ওমরাহ পালন করেন এবং মদিনায় মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর রওজা মুবারক জিয়ারত করেন।