অমিত শাহ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, প্রতিরক্ষায় রাজনাথ সিং

নরেন্দ্র মোদির নতুন মন্ত্রিসভার মন্ত্রীদের নাম ঘোষণা করা হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় দ্বিতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন নরেন্দ্র মোদি। তারপর থেকেই নতুন মন্ত্রিসভা নিয়ে জল্পনা চলছিল।

এবারের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার নেপথ্যের কারিগর অমিত শাহকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। অপরদিকে রাজনাথ সিং হয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী হয়েছেন নির্মলা সীতারামান।

ভারতের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হয়েছেন এস জয়শঙ্কর, রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। অপরদিকে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হাতে থাকছে কর্মী, জন-অভিযোগ, পেনশন, আণবিক শক্তি, মহাকাশ, এবং ঘোষণা করা হয়নি এমন সব মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রী করা হয়েছে আগের মন্ত্রী হর্ষবর্ধনকেই, তথ্যসম্প্রচারমন্ত্রী প্রকাশ জাভরেকর, পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। অপরদিকে সংখ্যালঘু কল্যাণমন্ত্রী মুক্তার আব্বাস নকভি, সড়ক পরিবহন নিতিন গডকরি, আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ, মহিলা ও শিশু কল্যাণ এবং বস্ত্র মন্ত্রণালয়ে স্মৃতি ইরানি, রাসায়ণিক ও সার মন্ত্রণালয়ে সদানন্দ গৌড়া, ক্রেতা বিষয়ক, খাদ্য ও গণবিতরণ মন্ত্রণালয়ে রামবিলাস পাসোয়ানই, কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণে হরসিম কাউর বাদল, আদিবাসীকল্যাণ অর্জুন মুন্ডা, সামাজিক ন্যায় থেওয়ার চাঁদ গেহলত, মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশঙ্ক।

বৃহস্পতিবার মোদির শপথে প্রায় আট হাজার অতিথি উপস্থিত ছিলেন। এর মধ্যে দেশের বিশিষ্টজনরা ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নেতা, রাজনীতিবিদ, তারকা এবং ব্যবসায়ীও ছিলেন।

ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনে বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়ে দ্বিতীয়বারের মতো সরকার গঠন করল বিজেপি। এই নির্বাচনে ৩৫২ আসনে জয় পেয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। এর মধ্যে বিজেপি একাই পেয়েছে ৩০৩ আসন।

কিন্তু বেশ কয়েকজন হাই প্রোফাইল মন্ত্রী যারা গতবারের সরকারে ছিলেন, তারা এবারের সরকারে নেই। এদের মধ্যে অন্যতম অরুণ জেটলি, সুষমা স্বরাজ, সুরেশ প্রভু, জে পি নাড্ডা, উমা ভারতী, মেনকা গান্ধী, রাধা মোহন সিং, চৌধুরী বীরেন্দ্র সিং, মনোজ সিনহা, কেজে আলফনস, মহেশ শর্মা, জুয়েল ওরাম মতো মন্ত্রীও।