প্রস্তুতি ম্যাচে পাকিস্তানকে হারাতে চায় বাংলাদেশ

বিশ্বকাপের আগে নিজেদের শেষবারের মতো ঝালিয়ে নিতে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। যার প্রথমটি অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল রোববার (২৬ মে) বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে ৩টায়। কার্ডিফে টাইগারদের প্রতিপক্ষ শেষ ১১টি ওয়ানডে ম্যাচে জয়ের মুখ না দেখা পাকিস্তান।

হারের বৃত্তে ঘুরপাক খেতে থাকা পাকিস্তান এ ম্যাচ দিয়ে জয়ের মুখ দেখতে চাইলেও, বাংলাদেশ শিবির থেকে দেয়া হবে না কোনো প্রকার ছাড়। প্রস্তুতি ম্যাচ বলে হেলায় না উড়িয়ে দিয়ে নিজেদের শক্তিমত্তা যাচাই করতে এখন মরিয়া মাশরাফী বাহিনী। সে জন্য লেস্টার থেকে কার্ডিফ যাবার পর নিয়মিত অনুশীলন করে যাচ্ছে দলের ক্রিকেটাররা।

ম্যাচটিকে বাংলাদেশ দল যে হালকাভাবে নিচ্ছে না তা ফুটে উঠলো বাংলাদেশ দলের অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজের কণ্ঠেও। আজ কার্ডিফের স্থানীয় সময় দুপুর ২টায় সোফিয়া গার্ডেনস ক্রিকেট গ্রাউন্ডে প্র্যাকটিসে নেমে পড়ে টাইগার স্কোয়াড।

সেখানে অনুশীলনের এক ফাঁকে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলার সময় মিরাজ বলেন, ‘প্রস্তুতি ম্যাচ বলে গা ছাড়া ভাব নেই দলে। সবসময় সব ম্যাচই আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আমরা যদি প্রস্তুতি ম্যাচে ভালো খেলতে পারি, আমাদের প্রস্তুতিটা যদি একটু ভালো হয় তবে সবকিছু আরও সহজ মনে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিশ্বকাপের ম্যাচগুলোতে অনেক চাপ থাকবে। কারণ অনেক হাইভোল্টেজ ম্যাচ হবে। তাই এই ম্যাচগুলোতে আমরা যদি নিজেদের সর্বোচ্চটুকু দিতে পারি তবে তা ভালো হবে আমাদের জন্য।’

এদিকে বিশ্বকাপের আগে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে প্রস্তুতি ম্যাচ সাহায্য করবে বলে মনে করেন মিরাজ, ‘বিশ্বকাপে আমাদের মূল ম্যাচের বাকি আর ৫ দিন। হাতে সময় নেই। দুটি ম্যাচ হয়তো কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে লাগবে আমাদের। তাই ম্যাচগুলো আমাদের দুর্বল জায়গাগুলো খুঁজে বের করতে কাজে লাগাতে হবে।’

কার্ডিফে আগামীকাল বাংলাদেশকে অনুপ্রেরণা জোগাবে এই ভেন্যুতে তাদের অতীত পারফরম্যান্স। কারণ এই ভেন্যুতে এখন পর্যন্ত দুটি ম্যাচ খেলে দুটিতেই জিতেছে টাইগাররা। আর সেই দুটি জয়ও এসেছে বড় দুটি দলের বিপক্ষে। ২০০৫ সালে তৎকালীন পরাক্রমশালী অস্ট্রেলিয়াকে এই কার্ডিফে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। এ ছাড়াও ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডকে এই ভেন্যুতেই পরাজিত করে লাল-সবুজরা।

পাকিস্তানের বিপক্ষে সাম্প্রতিক ফর্মও কথা বলছে বাংলাদেশের পক্ষে। শেষ চার ম্যাচের চারটিতেই মাশরাফী বাহিনী হারিয়েছে পাকিস্তানকে। এর মধ্যে ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজে পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশের পাশাপাশি এশিয়া কাপেও জয়ের মুখ দেখেছে টাইগাররা। দলও আছে দুর্দান্ত ফর্মে। সদ্যই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জেতা তামিম-সাকিবরা বেশ ফুরফুরে মেজাজে আছেন। সেই সঙ্গে দলের ব্যাটিং-বোলিং দুই বিভাগই দিয়ে যাচ্ছে নিজেদের সেরাটা।

অন্যদিকে নিজেদের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে হোঁচট খেয়ে পাকিস্তানের অবস্থা এখন নাজেহাল। গতকাল (বৃহস্পতিবার) ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ের দশ নম্বরে থাকা আফগানিস্তানের কাছে তারা হেরেছিল ৩ উইকেটের ব্যবধানে। এর আগে ইংল্যান্ড সফরে ৫ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে স্বাগতিকদের কাছে ৪-০’তে হেরে এখন রীতিমত অস্তিত্ব সংকটে সরফরাজ আহমেদের দল। যদিও বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচকে সামনে রেখে আজ কোনো অনুশীলন করেনি তারা।