হঠাৎ মাশরাফিকে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কল!

ত্রিদেশীয় সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর আয়ারল্যান্ডকেও নাস্তানাবুদ করেছে বাংলাদেশ। গতকাল বুধবার ডাবলিনের ক্লনটার্ফ ক্রিকেট গ্রাউন্ডে আয়ারল্যান্ড দলকে হারিয়ে সিরিজের ফাইনালে পৌঁছেছে মাশরাফি বাহিনী।

চলমান ত্রিদেশীয় সিরিজে এখন পর্যন্ত কোনো ম্যাচ হারেনি টিম-টাইগাররা। টাইগার কাপ্তানের নেতৃত্বে প্রতিটি ম্যাচেই জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। বৃষ্টির কারণে শুধুমাত্র আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে একটি ম্যাচে মাঠে নামতে পারেনি টাইগাররা। ফলে ওই ম্যাচে পয়েন্ট ভাগা ভাগিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে।

এবার অপরাজেয় থাকার মিশনে নজর ‘ফাইনালে’। ত্রিদেশীয় সিরিজ বা আন্তর্জাতিক কোনো ট্রফি নেই বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। শিরোপা জেতার একটাই সুযোগ দলের সামনে।

নিদাহাস ট্রফিতে হারার আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফোন করে জেতার আশার কথা জানিয়েছিলেন। আবাক করা ম্যাচে শিরোপা জেতে ভারত।

সেই প্রধানমন্ত্রীই ডাবলিনে অবস্থানরত বাংলাদেশ দলকে ফোন করেছেন আবার। বলেছেন, ‘চ্যাম্পিয়ন হওয়াই শেষ কথা নয়, মন উজাড় করে খেলাই গুরুত্বপূর্ণ।’

আগামীকাল শুক্রবার ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কল করেছিলেন অধিনায়ক মাশরাফিকে। দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বলেছেন। অনুপ্রেরণা জাগিয়েছেন। শুভকামনাও জানিয়েছেন দলকে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দল এখন ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে পর্যন্ত ৬টি ফাইনাল খেলেছে। হেরেছেও সবকটিতে। কেবল একটি ম্যাচ বাদে বাকিগুলোতে হেরেছে জয়ের খুব কাছাকাছি গিয়ে। এবার মাশরাফিরা চান না শিরোপা হাতছাড়া করতে।

মুশফিক, তামিম, রিয়াদদের শিরোপা জেতার জোর প্রত্যয় এবার। তবে মাশরাফি বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথা। “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কখনোই ট্রফি জয়ের কথা বলেন না। তিনি দলকে শুভকামনা জানিয়েছেন। বলেছেন, ‘টেনশন না করে মন খুলে খেলতে।

চ্যাম্পিয়ন হতেই হবে এমন কোনো কথা নেই।’ অনেক সময়ই আমাদেরকে ফোন করে উনি শুভেচ্ছা জানান। বরাবরই এরকমই বলেন। কখনোই বলেন না যে এবার চ্যাম্পিয়ন হতেই হবে।”

বাংলাদেশ দলের কাপ্তান আরও বলেন, “আমি যেখানেই যাই, এমনকি আমার পরিবারেও, ট্রফি জয়ের কথা বলেন সবাই। কিন্তু বাংলাদেশে মনে হয় প্রধানমন্ত্রীই একজন, কখনোই এই কথা বলেননি। গত এশিয়া কাপের ফাইনালের আগের দিনও বলেছিলেন,

‘শোনো, মানুষজন সবাই তো এত বোঝে না, আমিও খেলা তত বুঝি না। কিন্তু জানি যে ফাইনালে ওঠাই অনেক বড়। জিততেই হবে, এমন কথা নেই। তোমরা চেষ্টা করলেই আমরা খুশি।’ প্রধানমন্ত্রী যখন এরকম করে ভাবেন, বাড়তি প্রেরণা অবশ্যই জোগায়।”