কুড়িয়ে পাওয়া বাচ্চাটির পরিবার সম্পর্কে যা জানা গেল!‍

ঢাকা শিশু হাসপাতালের টয়লেট থেকে উদ্ধার হওয়া কন্যা শিশুটিকে নিয়ে উত্তেজনা ও উৎকণ্ঠা সৃষ্টি হয়েছে। শিশুটিকে দেখার জন্য এখন অসংখ্য মানুষ ভিড় করছে শিশু হাসপাতালে, অনেকেই আবার চাইছেন শিশুটির দায়িত্ব নিতে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, শিশুটি পুরোপুরি সুস্থ। আপাতত এক মায়ের কোলে নিশ্চিন্তেই আছে সে।

তবে সর্বশেষ পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, শিশুটির ব্যাপারে এখনো কোনো ধারণা পাওয়া যায়নি। শিশুটি কি চুরি যাওয়া কোনো বাচ্চা, নাকি ফেলে যাওয়া হয়েছে- কোনো কিছুই বোঝা যাচ্ছে না। মঙ্গলবার দুপুরে কে বা কারা ফুটফুটে এই শিশুটিকে হাসপাতালে ফেলে যায়।

পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে গেছে যে, শিশুটির নিরাপত্তার জন্য তার কেবিনের পাশে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তবে ২৪ ঘণ্টা আগে এর চেয়েও পরিস্থিতি খারাপ ছিল, যখন মেয়ে শিশুটিকে হাসপাতালের বাথরুম থেকে প্রথম উদ্ধার করা হয়।

তখন মায়াভরা এই মুখটি দেখে রীতিমতো কাড়াকাড়ি লেগে যায় শিশুটি নেওয়ার জন্য। ওই অবস্থায় তাকে উদ্ধার করেন একজন চিকিৎসক। নানা দিক বিবেচনা করে ওই চিকিৎসকের কাছে মনে হয়েছে হয়তো বা শিশুটি কোনো সচ্ছল পরিবারের সন্তান।

একদিকে শিশুটিকে দত্তক নেয়ার জন্য জমা পড়ছে একের পর এক আবেদন, অন্যদিকে গত তিনদিন ধরে শিশুটির দেখভাল করা রাসেল-পলি দম্পতি দাবি ছাড়তে চাইছে না। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করতে হবে আদালতের রায়ের।

গত তিনদিন ধরে কুড়িয়ে পাওয়া শিশুটির মা পলি। নিঃসন্তান পলি আপন করে নিয়েছে শিশুটিকে। হঠাৎ করেই জানতে পারলো দিয়ে দিতে হবে কুড়িয়ে পাওয়া ধনকে। পলি বলেন, ‘যেদিন থেকে পেয়েছি প্রয়োজনীয় সব জিনিসই আমি নিয়ে আসছি।’