শ্রীলঙ্কা হামলার হোতা জঙ্গির বাবা ও দুই ভাই বন্দুক যুদ্ধে নিহত

শ্রীলঙ্কায় গীর্জা ও হোটেলে একযোগে বোমা হামলার সন্দেহভাজন মূল পরিকল্পনাকারী মোহাম্মদ জাহরান হাশিমের বাবা ও তার দুই ভাই নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

দেশটির পূর্ব উপকূলের আমপারা জেলার সাইন্থামারুথুর একটি বাড়িতে শুক্রবার সন্ধ্যায় অভিযান চালায় পুলিশ। জাহরানের পরিবারের সদস্যরা ওই বাড়িতে আত্মগোপন করে আছে বলে পুলিশের কাছে খবর ছিল। রাতভর গোলাগুলির পর পুলিশ সেখান থেকে ছয় শিশুসহ ১৫ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করে।

শ্রীলঙ্কার পুলিশবাহিনীর মুখপাত্র জানায়, ওই বাড়িতে অভিযান শুরু হলে ভিতরে থাকা বন্দুকধারীরা গুলি চালায়। গোলাগুলির মধ্যেই তিন ব্যক্তি আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটায়। বিস্ফোরণে তিন শিশু ও তিন নারীও নিহত হন।আরও তিন জন পুলিশের গুলিতে নিহত হয়। গোলাগুলির মধ্যে পড়ে এক বেসামরিক ব্যক্তিও নিহত হয়েছেন।

গোলাগুলির সময় আহত এক নারী ও একটি শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানন পুলিশের ওই কর্মকর্তা । তিনি আরও জানান, আহত নারী ও শিশু জাহরানের স্ত্রী ও কন্যা বলে পুলিশকে জানিয়েছে তার বোন হাশিম মাথানিয়া।

এদিকে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে তিন ব্যক্তিকে ‘অবিশ্বাসীদের’ বিরুদ্ধে সর্বাত্মক যুদ্ধ ঘোষণার ডাক দিতে দেখা যায়। সেখানে এক ব্যক্তির কোলে একটি শিশুকেও দেখা যায়, শিশুর কান্নাও শোনা যায়। ভিডিওতে রিলওয়ান বাবা ও ভাইয়ের পাশে বসে ‘জিহাদের’ ডাক দেন। বলেন, “দেশের সুরক্ষায় আমরা এইসব অবিশ্বাসীদের ধ্বংস করবো। এজন্য আমাদের জিহাদ করতে হবে।

জাহরানের বোনের স্বামী নিয়াজ শরিফ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে ভিডিওতে থাকা ব্যক্তিদের পরিচয় নিশ্চিত করেছেন; তারা জাহরানের বাবা ও দুই ভাই।