রাজনীতিতে যোগ দেয়ার বিষয়ে এবার যে তথ্য দিলেন সাকিব আল হাসান

রাজনীতিতে আসা নিয়ে তিনি এখনো কিছু ভাবেননি, এটা নিয়ে কথা বলাটাও তার জন্য কঠিন। ক্রিকেটেই থাকতে চান এবং মনোযোগটা খেলাতেই থাকবে। অবসরের পর ক্যারিয়ার ভাবনা নিয়ে এমনটাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ টেস্ট ও টি-টুয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

তবে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার এটাও মনে করিয়ে দিয়েছেন, ভবিষ্যৎ নিয়ে কেউ কিছু বলতে পারে না। তাই কোনো কিছুই উড়িয়ে দেয়া যায় না।

শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় টি-টুয়েন্টি নিধাস ট্রফির আগে যখন ইনজুরিতে ছিলেন, তখন সপরিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেন সাকিব। টুর্নামেন্ট শেষে দাওয়াত পেয়েছিলেন রাষ্ট্রপতিরও।

সপরিবার বঙ্গভবনে গিয়ে রাষ্ট্রপতির বাসভবনেও গিয়েছিলেন। তারপর থেকেই গুঞ্জন, ক্রিকেট ছাড়ার পর সাকিব কি রাজনীতিতে আসবেন?

আইপিএল খেলতে সাকিব এখন ভারতে অবস্থান করছেন। সেখানেই দেশটির রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত সংবাদ সংস্থা পিটিআইর (প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়া) সঙ্গে কথা হয় সাকিবের। সেখানে তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, অবসরের পর রাজনীতিতে যোগ দেয়ার ভাবনা আছে কি না?

তাতে সাকিবের উত্তর, ‘ভবিষ্যৎ নিয়ে কেউ কিছু বলতে পারে না। আমি বর্তমান নিয়েই থাকতে চাই। কিন্তু কোনো কিছুই উড়িয়ে দিচ্ছি না। এ ব্যাপারে (রাজনীতি) এখনো ভাবিনি, তাই এটা নিয়ে এখন কথা বলাও কঠিন। ক্রিকেট আমার জীবন এবং মনোযোগটা শুধু এখানেই (ক্রিকেট) থাকবে।’

প্রধানমন্ত্রীর অফিশিয়াল বাসভবন গণভবনে সপরিবার যাওয়া নিয়ে পিটিআইর প্রশ্নে জবাবে সাকিব বলেন, ‘এটা ছিল সৌজন্যসাক্ষাৎ। তিনি ক্রিকেট খুব পছন্দ করেন এবং খেলোয়াড়দের সব সময় উৎসাহ দেন।’

ওই সাক্ষাতকারে সাকিব প্রশংসা করেছেন নিজের দল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের সতীর্থ স্পিনারদের।